চাপ কমাতে বালুরঘাট হাসপাতালে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগ

বালুরঘাট, ২ নভেম্বর— দীর্ঘদিন ধরেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন ব্লক সহ জেলা হাসপাতালে চিকিৎসকের ঘাটতি ছিল। ফলে পরিষেবা দিতে সমস্যাও হচ্ছিল। বিভিন্ন সময় চিকিৎসক ও নার্সিং স্টাফ নিয়োগের দাবি জানানো হয়। অবশেষে জেলায় জেনারেল ডিউটি মেডিকেল অফিসাররা কাজে যোগ দিতে শুরু করেছেন। ইতিমধ্যেই পাঁচজন বিশেষজ্ঞ (তিনজন স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ, একজন অ্যানাস্থেসিস্ট ও একজন শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ) কাজে যোগ দিয়েছেন। এর সঙ্গে ১১ জন জেনারেল ডিউটি মেডিকেল অফিসার এবং ৯৯ জন এবং ১১ জন জেনারেল ডিউটি মেডিকেল অফিসার এবং ৯৯ জন নার্সও কাজে যোগ দিয়েছেন। এরপরই জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে নতুন রোস্টার তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। কোভিড হাসপাতালে ওই রোস্টার মেনে কাজ হবে বলে মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক সুকুমার দে জানিয়েছেন। জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন , আগামী সাতদিনের মধ্যে আরও মেডিকেল অফিসার কাজে যোগ দেবেন। কোভিড পরিস্থিতিতে জেলায় চিকিৎসা পরিষেবা দিতে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের ওপর চাপ হচ্ছিল। নতুন চিকিৎসক ও নার্সরা কাজে যোগ দেওয়ার ফলে কিছুটা স্বস্তি এসেছে। প্রথমেই বালুরঘাট কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসকদের রোস্টার তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। করোনা আবহে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের চাপ বেড়ে গিয়েছে। লালার নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রতিদিন জেলার বিভিন্ন এলাকায় শিবির করা হচ্ছে। তার সঙ্গে হাসপাতালগুলিতেও রোগীর চাপ রয়েছে। এর পাশাপাশি নতুন তৈরি হওয়া সেফ হাউস এবং কোভিড হাসপাতালেও চিকিৎসকদের পরিষেবা দিতে হচ্ছে। চিকিৎসক সংকট থাকায় মাত্র কয়েকজন চিকিৎসককে দিয়ে কয়েক মাস ধরে কোভিড হাসপাতালে টানা ডিউটি করিয়ে নেওয়া হচ্ছিল। এই অতিরিক্ত দায়িত্ব সামলাতে গিয়ে চিকিৎসকরা স্বাভাবিকভাবেই চাপের মধ্যে ছিলেন। ফলে জেলায় চিকিৎসা পরিষেবায় সমস্যা তৈরি হচ্ছিল। এই পরিস্থিতির কথা ভেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মেডিকেল অফিসার ও নার্স নিযোগের কথা ঘোষণা করেন। পুজোর আগেই এই তালিকা প্রকাশ করা হয়। সেইমতো চলতি মরশুমে মেডিকেল অফিসার ও নার্সরা কাজে যোগদান করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *