নতুন বছরে পেট্রোপণ্যের দাম বাড়ল

ওয়েব ডেস্ক, ৬ জানুয়ার– সাধারণ মানুষকে স্বস্তি দিতে করের বোঝা লাঘব করে পেট্রল ও ডিজেলের দাম কমানোর দাবি উঠছিল। কিন্তু তাতে কর্ণপাত করেনি সরকার, টানা ২৯ দিন পরে বুধবার জ্বালানির দাম পরিমার্জন করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানিগুলি। আর বছরের প্রথম পরিমার্জনে আরও অগ্নিমূল্য হয়ে উঠল জ্বালানি।

এদিন পেট্রল এবং ডিজেল উভয়েরই দাম বেড়েছে। দিল্লিতে প্রতি লিটার পেট্রল ও ডিজেলের দাম বেড়েছে যথাক্রমে ২৬ পয়সা এবং ২৫ পয়সা। করের পার্থক্যের কারণে কলকাতায় তা আরও বাড়বে।
এদিকে, জ্বালানির সঙ্গে বাজারের সরাসরি যোগাযোগ আছে। তেলের দাম বাড়লে জিনিসপত্রের দামে তার প্রভাব পড়তে বাধ্য। যে কারণে একে কটাক্ষ করে সাধারণ মানুষের জন্য মোদী সরকারের ‘উপহার’ বলেই কটাক্ষ করতে শুরু করেছে তামাম বিরোধী শিবির। ভারতের বৃহত্তম রিটেইল তেল বিপণন সংস্থা ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশন-এর পরিসংখ্যান অনুসারে আজ, ৬ জানুয়ারি অধিকাংশ শহরে ডিজেলের দাম বেড়েছে। এদিন কলকাতায় প্রতি লিটারে এর দাম বেড়েছে ৩৬ পয়সা। এদিন দিল্লি, কলকাতা, মুম্বাই এবং চেন্নাইয়ে ডিজেলের দাম ছিল যথাক্রমে  ৭৪টাকা ১২ পয়সা,৭৭ টাকা ৮০ পয়সা, ৮০ টাকা ৭৮ পয়সা এবং ৭৯ টাকা ৪৬ পয়সা।

অন্যদিকে দেশের চার প্রধান শহরে পেট্রোলের দাম ছিল ৮৩ টাকা ৯৭ পয়সা, ৮৫ টাকা ৪৪ পয়সা, ৯০ টাকা ৬০ পয়সা এবং ৮৬ টাকা ৭৬ পয়সা।

অবশ্য হিমাচল প্রদেশ নয়, ইতিমধ্যে রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশেও ছড়িয়েছে বার্ড-ফ্লু আতঙ্ক। এমনকী পশ্চিমবঙ্গের জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান সংলগ্ন এলাকাতেও পায়রা মৃত্যুকে ঘিরে ছড়িয়েছে বার্ড ফ্লু নিয়ে শোরগোল। জানা গিয়েছে, দিন সাতেক আগে মাদারিহাট এলাকায় বেশ কিছু হরিতাল অর্থাৎ বুনো পায়রার মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ফের সোমবার হাইস্কুল চত্বর থেকে কয়েকটি মৃত পায়রা উদ্ধার হওয়ায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মাদারিহাটের অশ্বিনীনগর ও রবীন্দ্রনগর এলাকা থেকেও বুনো পায়রার দেহ উদ্ধারের ঘটনায় উদ্বিগ্ন বনকর্তারা। কারণ, মাদারিহাটের জনপদ থেকে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের দূরত্ব, প্রায় নেই বললেই চলে। আবার, করোনার রেশ কাটতে না কাটতেই নতুন করে বার্ড-ফ্লু আতঙ্ক ছড়িয়েছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। সেক্ষেত্রে ওই মারণ ভাইরাসের প্রকোপ কি তবে ডুয়ার্সেও? এই আশঙ্কায় তোলপাড় বন দপ্তরের অন্দর। কিন্তু ওই রোগ পরীক্ষার কোনও পরিকাঠামো বন দপ্তরের হাতে না থাকায় বাধ্য হয়ে স্থানীয় প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন দপ্তরের দ্বারস্থ হয়েছেন বনকর্তারা।



ইতিমধ্যে বুনো পায়রার মৃতদেহ সংগ্রহ করে ময়না তদন্ত শুরু করেছে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান কর্তৃপক্ষ।
ইতিমধ্যেই দেশের একাধিক রাজ্যে বার্ড-ফ্লু নিয়ে হাইঅ্যালার্ট জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। রাজস্থান,গুজরাট ও মধ্যপ্রদেশে মারা গিয়েছে মুরগি, ময়ূর, কাক-সহ অন্যান্য পাখি। বার্ড-ফ্লুর সতর্কতা জারি করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের পড়শি রাজ্যে ঝাড়খণ্ডেও। শুধু তাই নয়, হিমাচলপ্রদেশেও পাখিদের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। সোমবার আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাটের জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান সংলগ্ন অশ্বিনীনগর, হাইস্কুল পাড়া, রবীন্দ্র কলোনিতে বুনো পায়রার মৃতদেহ উদ্ধার হয়। সোমবার সব মিলিয়ে ১০টি বুনো পায়রার মৃতদেহ উদ্ধার করেছেন বনকর্মীরা। গত ২৭ ডিসেম্বরও মাদারিহাটের ওই নির্দিষ্ট এলাকাগুলি থেকে হরিতালের বেশ কয়েকটি দেহ উদ্ধারের পর বিষয়টিকে বিক্ষিপ্ত ঘটনা হিসেবে দেখেছিলেন বনকর্তারা। কিন্তু সাতদিনের মধ্যে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তিতে বিষয়টিকে আর হাল্কা ভাবে দেখতে রাজি নয় বনকর্তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *