নৌকা পারাপার বন্ধের বিজ্ঞপ্তি, অবরোধ বালুরঘাটে

বালুরঘাট, ৩ অক্টোবর– আত্রেয়ী নদীতে নৌকা পারাপারে দুর্ঘটনার আশঙ্কায় পরিসেবা বন্ধ করে দিতেই আন্দোলনে নামলেন একাধিক গ্রামের বাসিন্দারা। বৃহস্পতিবার বালুরঘাট ব্লক প্রশাসনের তরফে জারি করা নিষেধাজ্ঞার বিজ্ঞপ্তি দেখেই উত্তেজিত বাসিন্দারা জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন । শহরের রঘুনাথপুর এলাকায় বালুরঘাট – গাজোল ৫১২ নং জাতীয় সড়ক অবরুদ্ধ হয়ে পড়ায় চরম যানজটে নাজেহাল অবস্থার শিকার হন পথচলতি মানুষজন। ঘটনার দীর্ঘক্ষণ পরেও পুলিশ না পৌঁছানোয় উত্তেজিত হয়ে ওঠেন রাস্তায় আটকে পড়া যাত্রীরা। ঘটনায় দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি শুরু হয়ে যায় । ঘটনার খবর পেয়ে বিডিওর নির্দেশে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে ।
৩০শে সেপ্টেম্বর পূর্ব মেদিনিপুরের মহিষাদলে ভয়াবহ নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটে। মায়াচর থেকে অমৃতবেড়িয়া যাবার পথে ভরা রূপনারায়ন নদীতে ৫০ জন যাত্রী নিয়ে তলিয়ে যায় একটি নৌকা। যেখানে তদন্তে উঠে আসে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহণ সহ লাইফ জ্যাকেট না রাখার বিষয় । ওই ঘটনায় প্রায় অর্ধেক যাত্রীর খোঁজ পাওয়া যায়নি । যার পরেই নবান্ন থেকে নির্দেশিকা জারি করে বিভিন্ন জেলায় অসুরক্ষিত নৌকা পারাপার ১৫ দিনের জন্য বন্ধ করা হয়। এদিন সাত সকালে ওই নির্দেশিকা দেখার পরেই বালুরঘাটের বোয়ালদার পঞ্চায়েতের কালিকাপুর, ডাকরা, ধাউল ও খাসপুরের মানুষজন ৭ টা থেকে পথ অবরোধে সামিল হন। নৌকা পারাপার না হতে পেরে ঘুরপথে নিজেদের ফসল নিয়ে এসে রাস্তায় রেখে দেন তাঁরা । যাকে ঘিরেই রাস্তার দুই পাশে প্রচুর যানবাহন আটকে পড়ে । ওই ঘটনায় শহর জুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয় । উত্তেজিত হয়ে ওঠেন অবরোধে আটকে পড়া যাত্রীরাও । শুরু হয় দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি । ঘটনা জানার পরেই বিডিওর নির্দেশে বালুরঘাট থানার আইসি জয়ন্ত দত্তের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী পৌঁছে বাসিন্দাদের আশ্বস্ত করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে ।
বিক্ষোভকারী বাসন্তী মাহাত, পিনাকী চৌধুরীরা জানিয়েছেন, প্রতিদিন তাঁরা নৌকা করে আত্রেয়ী নদী পার হয়ে তাঁদের উৎপাদিত ফসল বাজারে বিক্রি করতে আসেন । এদিন প্রশাসনের নির্দেশিকায় সেই সুবিধা বন্ধ হয়ে পড়ে । ১৫ দিন ধরে এমন অবস্থা চললে তাঁদের প্রচুর ক্ষতি হবে । যার প্রতিবাদেই এই বিক্ষোভ । তাঁরা চান অবিলম্বে ওই নির্দেশিকা তুলে নেওয়া হোক অথবা এলাকায় ব্রীজ তৈরি করুক প্রশাসন ।
বালুরঘাট ব্লকের বিডিও অনুজ সিকদার বলেন, রাজ্যের নির্দেশিকায় নদীতে ১৫ দিনের জন্য নৌকা পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ।