অভিভাবকদের বিক্ষোভে সরানো হল দুই শিক্ষিকাকে

বালুরঘাট, ৯ জুলাই — দুই শিক্ষিকার বিরোধে শিকেয় উঠেছে পঠনপাঠন। প্রতিবাদে শিক্ষিকাদের ঘরে আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকরা। চাপে পড়ে দুই শিক্ষিকাকে অন্যত্র সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন স্কুল পরিদর্শক। মঙ্গলবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার পতিরামের জিএফএসপি স্কুলে।
জানা গিয়েছে, ওই স্কুলের মোট পড়ুয়ার সংখ্যা ১৪২ জন। শিক্ষক শিক্ষিকা রয়েছেন চারজন। ২০১৪ সালে টিচার ইনচার্জ হিসাবে কাজে যোগ দেন ললিতা সরকার। ২০১০ সাল থেকে ওই স্কুলে কর্মরত রয়েছেন কাকলী দাস। তাঁর অভিযোগ, নতুন টিআইসি আসার পর থেকেই বাকি দুই শিক্ষিকাকে নিয়ে দলবাজি শুরু করেন। নোংরা আবর্জনায় ভরে যায় স্কুল। বেহাল হয়ে পড়ে মিড-ডে মিল পরিসেবা। এমন অবস্থার প্রতিবাদ করাতেই তাঁকে রোষের মুখে পড়তে হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, দুই শিক্ষিকা মাঝেমধ্যেই বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। এমনকি তাঁদের মধ্যে হাতাহাতিও ঘটে থাকে। ফলে স্কুলের পড়াশোনা শিকেয় উঠেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতেই তাই এদিন স্কুলের বাকি শিক্ষিকাদের আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখানো হয়। খবর পেয়ে স্কুলে হাজির হন স্কুল পরিদর্শক শঙ্কর শেঠ। তিনি অভিযুক্ত দুই শিক্ষিকাকে অন্যত্র সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। তিনি জানান, অভিভাবকদের বিক্ষোভ সামাল দিতেই দুই শিক্ষিকাকে বদলি করা হয়েছে। তাঁদের পরিবর্তে নতুন এক শিক্ষককে ওই স্কুলে পাঠানো হয়েছে।