প্রায় ১২০০ পরিবারের হাতে ত্রিপল ও ত্রাণসামগ্রী তুলে দিলেন গয়েশবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান নাইমা খাতুন

জুলফিকার আলি- প্রকৃতিতে বর্ষা ঋতুর সৌন্দর্য নিয়ে বহু কবি নানা লেখা লিখেছেন কিন্তু এই ঋতু যেন অভিশাপ হয়ে নেমে আসে কালিয়াচকের গয়েশবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের বেশ কিছু মানুষের উপর । নিম্নবিত্ত পরিবার । এর উৎস বলতে শুধুই দিনমজুর । পাকা বাড়ির স্বপ্ন বেশিরভাগ মানুষের কাছে বিলাসিতা । মাথা গুজ্তে তাই কাঁচা মাটির তৈরি বাড়ি ভরসা । প্রায় এক মাস ধরে সারা রাজ্যের পাশাপাশি প্রবল বর্ষণ শুরু হয়েছে গয়েশ বাড়িতেও   ।  আর এতেই যেন মাথায় বাজ ভেঙে পড়ে   দিন আনি দিন খাই মানুষগুলোর উপর । বর্ষার প্রবল তোরে বেশ কিছু কাঁচা বাড়ি ভগ্নস্তূপে পরিণত । লকডাউন এর জেরে কাজ নেই কোনরকমে মাথা গোঁজার ঠাঁই টুকুও হারিয়ে যাওয়ার মুখে । এমন অসহায় মানুষগুলোর দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে গয়েশবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত পঞ্চায়েত প্রধান নাইমা খাতুনের উদ্যোগে বারোশো পরিবার কে ত্রাণসামগ্রী দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে । ইতিমধ্যে পরিবারগুলোর সদস্যরা যাতে খোলা আকাশের নিচে বাস করতে বাধ্য না হয় তার জন্য অস্থায়ী আবাস গড়তে দেওয়া হয়েছে ত্রিপল ।এছাড়াও খাদ্য সামগ্রী কেনার জন্য বেশ কিছু পরিবারের হাতে কিছু নগদ টাকাও তুলে দেওয়া হয়েছে ।এলাকার কোন মানুষই যাতে অনাহারে বা নিরাশ্রয়ে না থাকেন তার জন্য শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন প্রধান নায়মা খাতুন ।