কংগ্রেসের এক শ্রমিক সংগঠনের নেতার বাড়ি থেকে মধুচক্রের আসর ধরা পড়ার ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো

জুলফিকার আলি- কংগ্রেসের এক শ্রমিক সংগঠনের নেতার বাড়ি থেকে মধুচক্রের আসর ধরা পড়ার ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো। বৃহস্পতিবার রাতে মালদা শহরের কুট্টিটোলা এলাকার কংগ্রেসের ওই সংগঠনের নেতার বাড়ি থেকে দুজন যুবক এবং দুজন যুবতীকে আপত্তিকর জনক অবস্থায় আটক করে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। রাতেই বিষয়টি জানাজানি হতেই তীব্র অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়ে সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে।স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, এর আগেও ওই কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের নেতার বাড়ি থেকে এরকম ভাবেই অচেনা কয়েকজন যুবক-যুবতী পুলিশের হাতে ধরা পড়েছিল। তার জের কাটতে না কাটতেই আবার মধুচক্রের আসরের ঘটনায় এবার ওই কংগ্রেস নেতাকে এলাকা থেকে সরানোর প্রতিবাদ জানিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।এদিকে কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিইউসি’র ওই নেতা অবশ্য পুরো বিষয়টি ভিত্তিহীন এবং তাকে চক্রান্ত করে ফাঁসানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন । তিনি বলেন, আমার বাড়িটি ভাড়া দেওয়া ছিল। সেখানে যারা থাকতেন। তারা এখন কি কাজ করছেন তা বলতে পারবো না । আধার কার্ডের পরিচয়ের ভিত্তিতে আমি বাড়িটা ভাড়া দিয়ে ছিলাম। হঠাৎ করেই আমার বাড়িতে পুলিশ এসেছিল। তারপর এই ঘটনার কথা জানতে পারি। এই ঘটনার পিছনে ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে মনে করছি।এদিকে কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের ওই নেতারা এই আচরণে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন দলের সংগঠনের জেলা সভানেত্রী লক্ষ্মী গুহ। তিনি বলেন, ওই নেতার এটা প্রথম ঘটনা নয় । এর আগেও তিনি মধুচক্রের আসরের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন । তার বাড়ি থেকে কয়েক জন পুরুষ ও মহিলাকে গ্রেফতার করেছিল ইংরেজবাজার থানার পুলিশ । আবার একই ঘটনা ঘটলো। এতে সংগঠনের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। আবার ওই নেতা নিজেকে সংগঠনের জেলা সভাপতি বলেও কখনো- কখনো দাবি করছেন। আমি এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পুরো বিষয়টি সংগঠনের রাজ্য নেতৃত্বকে জানানো হয়েছে । এরকম নেতা যদি সংগঠনে থাকে, তাহলে দলের ক্ষতি হবে।