হরিশ্চন্দ্রপুরে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সম্মেলনে জেলা সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর ও চেয়ারম্যান ডক্টর মোয়াজ্জেম হোসেন

জুলফিকার আলি -সামনে একুশের বিধানসভা ভোট। ঘাড়ের উপর নিঃশ্বাস ফেলছে বিজেপি। কিন্তু তৃতীয় বারের জন্য বাংলার ক্ষমতায় আসতে মরিয়া তৃণমূল কংগ্রেস। তাই প্রাক বিধানসভা প্রস্তুতিতে কোন খামতি রাখতে চাইছে না তারা। সভা-সম্মেলন ,মিটিং, মিছিলের মধ্যে দিয়ে দলের সক্রিয়তা বাড়ানো হচ্ছে বিভিন্ন এলাকায়। আজ মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুরের জেলা সভানেত্রী এবং চেয়ারম্যান এর উপস্থিতিতে একটি কর্মী সম্মেলন হয় তৃণমূল কংগ্রেসের। হরিশ্চন্দ্রপুর কিরণবালা বালিকা বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে হয় এই কর্মী সম্মেলন। এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের মালদা জেলার সভানেত্রী তথা রাজ্যসভার সাংসদ মৌসম বেনজির নূর,মালদা জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান ডক্টর মোয়াজ্জেম হোসেন,হরিশ্চন্দ্রপুর বিধানসভার কো-অর্ডিনেটর তাজমুল হোসেন,মালদা জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক বুলবুল খান,মালদা জেলা পরিষদের শিশু নারী ও ত্রাণ কর্মাধক্ষ্যা মর্জিনা খাতুন,হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ও ২ নং ব্লক ছাত্র,যুব ও মাদারের সভাপতিরা এবং অন্যান্য ব্লক  ও অঞ্চল নেতৃত্ব। আর আজকের এই কর্মী সম্মেলনে জেলা সভানেত্রী এবং চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতেই দলের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নং ব্লক তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি মোঃ রুহুল আমিন।তিনি বলেন যারা যতটা দলকে ভালোবাসে দলে তাদের ততটাই গুরুত্ব দেওয়া উচিত। মানুষকে ফাঁকি দিলে চলবে না মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। মানুষের জন্য কাজ না করে শুধুমাত্র নেতাদের পেছনে ঘুরে দলে জায়গা পেলে চলবে না। দল এই ব্যাপারগুলোতে লক্ষ্য রাখলে হরিশ্চন্দ্রপুর বিধানসভায় তৃণমূল বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে। আর উনার এই বক্তব্যকে ঘিরে দানা বেঁধেছে বিতর্ক। প্রশ্ন উঠছে যে তাহলে দলীয় নেতৃত্বের ভূমিকায় তিনি কি  অসন্তুষ্ট?আর কাকে লক্ষ্য করে তিনি এই কথাগুলো বললেন।যদিও মূলত দলের পক্ষ থেকে বলা হয় দলে কোনো মতবিরোধ নেই। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে হরিশ্চন্দ্রপুরে দল কিভাবে লড়বে মূলত সেই নিয়েই বার্তা দেওয়া হয় আজকের এই কর্মিসভায়। সাথেই সাম্প্রদায়িকতা সহ বিভিন্ন  ইস্যু নিয়ে বিজেপিকে এক হাত নেন তৃণমূলের জেলা সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর।মালদা জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক বুলবুল খান বলেন,”আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়নেকে হাতিয়ার করেই আমরা লড়বো। আর আজ  কর্মীদের সেই বার্তাই দেওয়া হল। সরকারের ৬৯ টি প্রকল্প নিয়ে মানুষকে বোঝাতে হবে। আর একটা বড় দলের মধ্যে ছোটখাটো মতবিরোধ থাকতেই পারে। সেগুলোকে ঠিক করে আমরা এগিয়ে যাব। “মালদা জেলা তৃণমূল সভানেত্রী তথা রাজ্যসভার সাংসদ মৌসম বেনজির নূর বলেন,”সামনের বিধানসভা নির্বাচনকে লক্ষ্য করেই আজকের এই কর্মীসভা। বিধানসভা নির্বাচনের আগে হরিশ্চন্দ্রপুরে আমাদের কর্মীদের নিয়ে প্রস্তুতি সভা হয়ে গেল। উন্নয়নই আমাদের আদর্শ। তাই আমরা উন্নয়নের প্রচার করি। হরিশ্চন্দ্রপুর বিধানসভায় জয়ের ব্যাপারে আমি সম্পূর্ণ আশাবাদী।”